ব্রেকিং নিউজ

‘এক ঢিলে তিন পাখি মারা’র অপেক্ষায় গেইল

গেইল

কাল হেডিংলিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিজের শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলতে নামবেন ক্রিস গেইল। বিদায় নেওয়ার আগে তিনটি বড় রেকর্ড হাতছানি দিয়ে ডাকছে ‘ইউনিভার্স বস’কে।

বিশ্বকাপের আগে শেষ ওয়ানডে সিরিজে ছিলেন বিধ্বংসী ফর্মে। কিন্তু নিজের শেষ বিশ্বকাপটা রাঙিয়ে রেখে যেতে পারছেন না ক্রিস গেইল। ৮ ইনিংস খেলেও কোনো সেঞ্চুরি নেই, ফিফটিই মাত্র দুটি। গেইল জ্বলে উঠতে না পারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজও পারেনি ভালো কিছু করতে। তবে শেষ ম্যাচের আগে দারুণ তিনটি রেকর্ড হাতছানি দিয়ে ডাকছে ‘ইউনিভার্স বস’কে।

আগামীকাল হেডিংলিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে এ বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ খেলতে নামবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ম্যাচটি থেকে দুই দলের কারওরই কিছু পাওয়ার নেই। তবে গেইল পাখির চোখ করতে পারেন ব্যক্তিগত তিনটি রেকর্ডকে। তার জন্য আগামীকাল অবশ্যই ব্যাট হাতে চেনা রূপে ফিরতে হবে গেইলকে।

তিন রেকর্ডের মধ্যে প্রথম রেকর্ডটির মাহাত্ম্যই বড় হওয়ার কথা গেইলের কাছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইতিহাসে ব্যাটিংয়ের বেশির ভাগ রেকর্ডই ব্রায়ান লারার দখলে। সেই লারার রেকর্ড ভাঙারই দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছেন গেইল। তার জন্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে গেইলকে করতে হবে মাত্র ১৮ রান। শেষ ম্যাচে এই ১৮ রান করতে পারলেই লারাকে টপকে ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানের মালিক হয়ে যাবেন ৩৯ বছর বয়সী গেইল।

২৯৫ ম্যাচ খেলে ১০ হাজার ৩৪৮ রান নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ রান লারার। কাকতালীয় বিষয় হলো, লারার সমান ম্যাচ খেলেই লারাকে টপকে যাওয়ার সম্ভাবনা গেইলের সামনে। লারার চেয়ে মাত্র এক ম্যাচ কম খেলে, অর্থাৎ ২৯৪ ম্যাচে গেইলের রান এখন ১০ হাজার ৩৩১। আর ১৭ রান করতে পারলে লারাকে ছুঁয়ে ফেলবেন, আর ১৮ করতে পারলে রেকর্ডটি করে নেবেন শুধুই নিজের।

ম্যাচ যেমন লারার চেয়ে কম খেলেছেন, বল খেলার সংখ্যাতেও লারার চেয়ে পেছনে আছেন গেইল। ১০ হাজার ৩৪৮ রান করতে লারাকে খেলতে হয়েছে ১২ হাজার ৯৯৬ বল। উল্টো দিকে ১০ হাজার ৩৩১ রান করতে গেইলকে খেলতে হয়েছে মাত্র ১১ হাজার ৮৪৬ বল। অর্থাৎ লারার চেয়ে এক হাজারের বেশি বল কম খেলেই লারাকে টপকে যেতে পারেন গেইল। সেঞ্চুরি সংখ্যায় অবশ্য এর মধ্যেই লারাকে বেশ পেছনে ফেলে দিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলা গেইল। লারার ১৯ সেঞ্চুরির বিপরীতে গেইলের সেঞ্চুরি ২৫টি। ফিফটির সংখ্যায় অবশ্য লারাই এগিয়ে। গেইলের ফিফটি ৫২টি, আর লারার ৬২টি।

দ্বিতীয় যে রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে গেইল, সেটিতেও লারাকেই পেছনে ফেলার হাতছানি গেইলের সামনে। এর জন্য গেইলের দরকার ৪৭ রান। পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলে বিশ্বকাপে লারার সংগ্রহ ১ হাজার ২২৫ রান। বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রান এটিই। লারাকে টপকে এ রেকর্ডটিও নিজের করে নিতে পারেন গেইল। বিশ্বকাপে লারার সমান ৩৪ ম্যাচ খেলে গেইলের রান ১ হাজার ১৭৯। আগামীকাল আর ৪৭ রান করতে পারলেই তাই ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানের পাশাপাশি বিশ্বকাপেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ রানের মালিক হবেন গেইল।

তৃতীয় রেকর্ডটি করতে হলে অবশ্য একটু কষ্টই করতে হবে গেইলকে। সেঞ্চুরি করতে না পারলে যে এ রেকর্ডের দেখা পাবেন না তিনি! সেঞ্চুরি করলেও অবশ্য রেকর্ডটা এককভাবে হবে না গেইলের, ভাগ করে নিতে হবে আরেকজনের সঙ্গে। তবে যার সঙ্গে ভাগাভাগি করবেন, ক্রিকেট ইতিহাসেই তিনি আপন মহিমায় উজ্জ্বল। বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩টি সেঞ্চুরি ভিভ রিচার্ডসের। গেইলের সেঞ্চুরি এখন ২টি। আগামীকাল নিজের শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ খেলতে নামবেন গেইল। শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করতে পারলে তাই ‘এক ঢিলে তিন পাখি’ মারা হয়ে যাবে গেইলের!

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক প্রকাশনা সমূহ

   সাম্প্রতিক খবর



»