ব্রেকিং নিউজ

প্রেমিকার পেছনে রোনালদো মাসে কত টাকা খরচ করেন?

প্রেমিকার পেছনে রোনালদো

রোনালদোর বান্ধবী হওয়ার আগে কজনই বা চিনত জর্জিনা রদ্রিগেজকে? সে জর্জিনা নিজেই এখন নামকরা মডেল। মডেলিং ও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দূতিয়ালি থেকে প্রাপ্ত অর্থের পাশাপাশি সঙ্গী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কাছ থেকে মাসিক যে হাত খরচ পান, সেটির পরিমাণ শুনলে যে কারও চোখ কপালে উঠবে!

রোনালদো-জর্জিনার প্রেমকাহিনিটা অনেকটা রূপকথার সেই সিন্ডারেলার মতো।

রোনালদো জীবনে আসার আগে পাদপ্রদীপের আড়ালে থেকেই অভ্যস্ত ছিলেন জর্জিনা। ছিলেন বিশ্ববিখ্যাত ব্রান্ড গুচির একজন দোকানকর্মী। রোনালদোর সঙ্গে প্রেম হওয়ার পরপরই রাতারাতি সবার পরিচিত হয়ে যান, মডেলিং ও দূতিয়ালির প্রস্তাব পেতে থাকেন। পাঁচ বছর ধরে রোনালদোর সঙ্গে প্রেম তাঁর। এ যুগে যেখানে প্রতিনিয়ত সম্পর্ক ভাঙাগড়ার খেলায় মেতে থাকেন তারকারা, রোনালদো আর জর্জিনা যেন তার উজ্জ্বল ব্যতিক্রম। রোনালদোর জীবনেও এর আগে কখনো একই বান্ধবী এত দিন ছিলেন না। শোনা গেছে, দুজন সাত পাকে বাধাও পড়তে পারেন শিগগিরই। অর্থাৎ ইঙ্গিত স্পষ্ট, দুজন একে অন্যকে নিয়ে বেশ সুখেই আছেন। রোনালদোর বাকি তিন সন্তান ইভা, মাতেও ও ক্রিস্টিয়ানো জুনিয়রের পাশাপাশি এই জুটির কোল আলো করে এসেছে আলাইনা মার্তিনা নামের কন্যা সন্তান।

মডেলিংয়ের পাশাপাশি এই চার সন্তানকেও লালন-পালন করার দায়িত্ব হাসিমুখে মেনে নিয়েছেন জর্জিনা। রোনালদোও তাই বান্ধবীকে আকাশছোঁয়া হাতখরচ দিতে কার্পণ্য করেন না। কিন্তু বান্ধবীর পিছে রোনালদো ঠিক কতটুকু খরচ করেন? অঙ্কটা শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য। সম্প্রতি ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম কোরিয়েরে দেল্লো স্পোর্তের কল্যাণে জানা গেছে, জুভেন্টাসের এই তারকা স্ট্রাইকার হাত খরচ বাবদ মাসে বান্ধবীকে প্রায় পঞ্চাশ হাজার পাউন্ড থেকে এক লাখ ইউরোর মতো দেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৪৬ লাখ থেকে ৯২ লাখ টাকার সমান।

তবে জর্জিনা নিজেও যে রোনালদোর অর্থের ওপর নির্ভরশীল না, সেটাও বোঝা গেছে আরেকটা তথ্যের মাধ্যমে। ইনস্টাগ্রামে একেক পোস্টের জন্য বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কাছ থেকে আট হাজার ইউরো বা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় সাড়ে সাত লাখ টাকা করে পান জর্জিনা। একটা সাক্ষাৎকার দেওয়ার জন্য এক লাখ ইউরো বা প্রায় ৯২ লাখ টাকা দাবি করেন জর্জিনা। সঙ্গে বিভিন্ন পণ্যের দূতিয়ালি, মডেলিং ও মঞ্চে অভিনয়—এসব তো আছেই। এ ছাড়া সম্প্রতি প্রকাশিত একটা ভিডিওর মাধ্যমে জানা গেছে, জর্জিনা একজন কুশলী নৃত্যশিল্পীও বটে।

জুভেন্টাসে বছরে প্রায় ৩ কোটি ইউরো করে আয় করছেন রোনালদো। অর্থাৎ মাসে ২৫ লাখ ইউরো, সপ্তাহে ছয় লাখ পঁচিশ হাজার। বাংলাদেশের টাকায় হিসেব করলে যার মান দাঁড়ায় সপ্তাহে প্রায় ছয় কোটি টাকা। সে হিসেবে জর্জিনার পেছনে অবশ্য অত বেশি খরচই বা আর হচ্ছে কই রোনালদোর!

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক প্রকাশনা সমূহ

   সাম্প্রতিক খবর



»