ব্রেকিং নিউজ

মাংস কাটতে গিয়ে কাটা গেল শিশুর পেট, অবশেষে মৃত্যু

গরু কোরবানি করার সময় পাশে দাঁড়িয়ে দেখছিল শিশুটি। এ সময় অসাবধানবশত কসাইয়ের হাত থেকে ছুটে যাওয়া চাপাতি পেটে ঢুকে এক শিশুর

গরু কোরবানি করার সময় পাশে দাঁড়িয়ে দেখছিল শিশুটি। এ সময় অসাবধানবশত কসাইয়ের হাত থেকে ছুটে যাওয়া চাপাতি পেটে ঢুকে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মাদারীপুরে সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নে আজ সোমবার সকালে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত মৌমিতা আক্তার (১০) দুধখালী ইউনিয়নের উত্তর দুধখালী বড়কান্দি গ্রামের আনোয়ার বেপারীর মেয়ে। সে দুধখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মৌমিতার মৃত্যুতে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে বাড়ির লোকজন উঠানে গরু কোরবানি করতে শুরু করে। এ সময় কয়েকজন শিশু দাঁড়িয়ে তা দেখছিল। একপর্যায়ে গরু নাড়াচাড়া করলে কসাইয়ের হাতে থাকা চাপাতি ছুটে গিয়ে মৌমিতার পেটে ঢুকে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় মাটিয়ে পড়ে যায় মৌমিতা। পরে বাড়ির লোকজন তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

দুখখালী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নাসির উদ্দিন বেপারী এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী। নাসির উদ্দিন বলেন, ‘গরুটি দাপাদাপি করতেছিল। এ সময় কসাইয়ের হাতে থাকা ছুরি ছুটে গিয়ে মৌমিতার পেটে ঢুকে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই শিশুটির।’

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সিরাজুল হক সরদার জানান, গরু কোরবানির সময় কসাইয়ের হাত থাকা চাপাতি ছুটে গিয়ে মেয়েটির পেটে ঢুকে যায়। পরে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহতের পরিবার থেকেও কোনো অভিযোগ দেয়নি। তবে, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, মৌমিতার পেটের ভেতর থেকে শুরু করে আঘাত ফুসফুস পর্যন্ত লেগেছে। এটি বড় ধরনের আঘাত। হাসপাতালে আনার অনেক আগেই ওই শিশুটির মৃত্যু হয়। পরে নিহতের স্বজনরা মৌমিতার মরদেহ বাড়িতে নিয়ে গেছে।

মৃত্যু হয়েছে। মাদারীপুরে সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নে আজ সোমবার সকালে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত মৌমিতা আক্তার (১০) দুধখালী ইউনিয়নের উত্তর দুধখালী বড়কান্দি গ্রামের আনোয়ার বেপারীর মেয়ে। সে দুধখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মৌমিতার মৃত্যুতে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে বাড়ির লোকজন উঠানে গরু কোরবানি করতে শুরু করে। এ সময় কয়েকজন শিশু দাঁড়িয়ে তা দেখছিল। একপর্যায়ে গরু নাড়াচাড়া করলে কসাইয়ের হাতে থাকা চাপাতি ছুটে গিয়ে মৌমিতার পেটে ঢুকে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় মাটিয়ে পড়ে যায় মৌমিতা। পরে বাড়ির লোকজন তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

দুখখালী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নাসির উদ্দিন বেপারী এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী। নাসির উদ্দিন বলেন, ‘গরুটি দাপাদাপি করতেছিল। এ সময় কসাইয়ের হাতে থাকা ছুরি ছুটে গিয়ে মৌমিতার পেটে ঢুকে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই শিশুটির।’

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সিরাজুল হক সরদার জানান, গরু কোরবানির সময় কসাইয়ের হাত থাকা চাপাতি ছুটে গিয়ে মেয়েটির পেটে ঢুকে যায়। পরে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহতের পরিবার থেকেও কোনো অভিযোগ দেয়নি। তবে, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, মৌমিতার পেটের ভেতর থেকে শুরু করে আঘাত ফুসফুস পর্যন্ত লেগেছে। এটি বড় ধরনের আঘাত। হাসপাতালে আনার অনেক আগেই ওই শিশুটির মৃত্যু হয়। পরে নিহতের স্বজনরা মৌমিতার মরদেহ বাড়িতে নিয়ে গেছে।

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক প্রকাশনা সমূহ

   সাম্প্রতিক খবর



»