ব্রেকিং নিউজ

৩ ম্যাচ কম খেলেই টেন্ডুলকারকে ছুঁলেন সাকিব

পয়েন্ট তালিকা

এক বিশ্বকাপে সাতটি পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংসের রেকর্ড আছে শচীন টেন্ডুলকারের। আজ সেই রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। তবে টেন্ডুলকারের চেয়ে সাকিব ম্যাচ কম খেলেছেন তিনটি।

টেন্ডুলকারের রেকর্ডে ভাস বসিয়েছেন সাকিব আল হাসান। ছবি: শামসুল হকএবারের বিশ্বকাপে সাকিব মাঠে নামা মানেই রেকর্ড বইয়ে আমূল পরিবর্তন। ব্যক্তিগতভাবে কতগুলো রেকর্ড হচ্ছে, সে হিসেব প্রতি ম্যাচেই রাখতে হচ্ছে। আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে ফিফটি করে বিশ্ব ক্রিকেটের কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের অনন্য এক রেকর্ডও ছুঁয়েছেন। এক বিশ্বকাপে সাতটি পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস আছে টেন্ডুলকারের। ২০০৩ অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ থেকে রেকর্ডটা নিজের করে রেখেছিলেন লিটল মাস্টার। ১৬ বছর পরে সে রেকর্ডে ভাগ বসালেন সাকিব।

লর্ডসে আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে নিয়ম রক্ষার ম্যাচে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। সেমিফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে পড়ায় বিশ্বকাপে এটাই বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ। তবে ব্যক্তিগতভাবে যথারীতি নিজের পারফরম্যান্স ধরে রেখেছেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার। পাকিস্তানের ৩১৫ রানের জবাবে ব্যাট হাতে যা লড়াই করার সাকিবই দেখিয়েছেন (এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত)। শাহিদ আফ্রিদির বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৭৭ বল খেলে রান করেছেন ৬৪। ফলে ৬০৬ রান নিয়ে বিশ্বকাপ শেষ করল সাকিব।

এক বিশ্বকাপে সাতটি পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস খেলা চাট্টিখানি কথা নয়। যে কীর্তি কেবল আছে টেন্ডুলকার ও সাকিবের। তবে ম্যাচের হিসেবে তুলনামূলক বিচারে অনেক এগিয়ে আছেন বাংলাদেশের ‘সুপারম্যান’। ২০০৩ বিশ্বকাপে ১১ ম্যাচে সাতটি পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলেছিলেন টেন্ডুলকার। এর মধ্যে সেঞ্চুরি ছিল মাত্র একটি। আর সাকিবের ৭টি পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলতে ম্যাচ খেলতে হয়েছে মাত্র আটটি। সেঞ্চুরিও টেন্ডুলকারের চেয়ে একটি বেশি। তবে সাকিবের চেয়ে টেন্ডুলকারের রান বেশি। টেন্ডুলকারের মোট রান ছিল ৬৭৩ আর সাকিবের ৬০৬। তবে টেন্ডুলকারের চেয়ে সাকিব ম্যাচ কম খেলেছেন তিনটি।

আজ সাকিব শুধু টেন্ডুলকারে রেকর্ডেই ভাগ বসাননি। বিশ্বকাপে সর্বকালের সর্বোচ্চ রানের মালিকের ১০ জনের তালিকায় ঢুকে গিয়েছেন। চারটি বিশ্বকাপ খেলে সাকিবের মোট রান ১১৪৬। এতে রানের দিক দিয়ে নবম স্থানে আছেন সাকিব। তালিকায় তাঁর ওপরে আছেন শচীন টেন্ডুলকার, রিকি পন্টিং, কুমার সাঙ্গাকারা, ব্রায়ান লারারা। সাকিব আরও একটি বিশ্বকাপ খেলতেই পারেন। সেই বিশ্বকাপে এবারের মতো ফর্ম না থাকলেও বিশ্বকাপের সর্বকালের সেরা পাঁচে উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশ উজ্জ্বল থাকবে সাকিবের।

ব্যাটসম্যানম্যাচরানগড়১০০/৫০
শচীন টেন্ডুলকার৪৫২২৭৮৫৬.৯৫৬/১৫
রিকি পন্টিং৪৬১৭৪৩৪৫.৮৬৫/৬
কুমার সাঙ্গাকারা৩৭১৫৩২৫৬.৭৪৫/৭
ব্রায়ান লারা৩৪১২২৫৪২.২৪২/৭
এবি ডি ভিলিয়ার্স২৩১২০৭৬৩.৫২৪/৬
ক্রিস গেইল৩৫১১৮৬৩৫.৯৩২/৬
সনাৎ জয়াসুরিয়া৩৮১১৬৫৩৪.২৬৩/৬
জ্যাক ক্যালিস৩৬১১৪৮৪৫.৯২১/৯
সাকিব আল হাসান২৯১১৪৬৪৫.৮৪২/১০
তিলকারত্নে দিলশান২৭১১১২৫২.৯৫৪/৪
মাহেলা জয়াবর্ধনে৪০১১০০৩৫.৪৮৪/৫
অ্যাডাম গিলক্রিস্ট৩১১০৮৫৩৬.১৬১/৮
জাভেদ মির্য়াদাদ৩৩১০৮৩৪৩.৩২১/৮

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক প্রকাশনা সমূহ

   সাম্প্রতিক খবর



»