ব্রেকিং নিউজ

শুধু মাত্র একটা ম্যাচ ই জিতবে বাংলাদেশঃম্যাককালাম

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলকে নিয়ে দারুণ আশাবাদী সবাই। ক্রিকেট বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এবারের আসরে সব দলকেই টেক্কা দেবে বাংলাদেশ। অনেকে তো মাশরাফি-সাকিবদের সেমিফাইনালেও দেখতে পাচ্ছেন। তবে টাইগার দলটিকে নিয়ে মোটেও আশাবাদী নন নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কিউই এই অধিনায়ক মনে করেন এবারের আসরে বাংলাদেশ দলের ভরাডুরি হবে। ম্যাককালাম ভবিষ্যতবাণী করেছেন, কেবল শ্রীলংকার বিপক্ষেই জিতবে বাংলাদেশ। হারবে বাকি আট ম্যাচে।

এবারের বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব নিয়ে বিস্তর ব্যাখা বিশ্লেষন করেছেন ম্যাককালাম। আর সেটার ফলাফল ইনস্ট্রাগ্রামে পোস্ট করেছেন তিনি। গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ড ও ভারতকে সবার চেয়ে এগিয়ে রেখেছেন তিনি। সাবেক কিউই ব্যাটসম্যানের হিসাব মতে, গ্রুপ পর্বে আটটি করে ম্যাচ জিতবে দল দুটি। তিনি মনে করেন, ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হারবে আর ভারতের বিপক্ষে জিতবে।

গ্রুপ পর্বের ছয়টি ম্যাচে জিতবে অস্ট্রেলিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে হারবে অ্যারন ফিঞ্চের দল। তিনটি দল পাঁচটি করে ম্যাচে জিতবে বলে ম্যাককালাম মনে করছেন। দল তিনটি হলো নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

ম্যাককালামের হিসাব মতে এবারের বিশ্বকাপে শ্রীলংকা ও বাংলাদেশের চেয়ে ভালো খেলবে আফগানিস্তান। তার হিসাবে বেঙ্গল ও লংকান টাইগারদের বিপক্ষে জিতবে আফগানরা। ম্যাককালাম আরো বলেন, এবাবের বিশ্বকাপে বৃষ্টি বেশ ভোগাবে দলগুলিকে।

ঈদকে সামনে রেখে দেশের প্রেক্ষাগৃহের মালিকরা এরইমধ্যে নতুন ছবির বুকিং করা শুরু করেছেন। এবার ঈদে মালেক আফসারী পরিচালিত ‘পাসওয়ার্ড’, সাকিব সনেটের ‘নোলক’ ও অনন্য মামুনের ‘আবার বসন্ত’ নামের তিনটি ছবি মুক্তির জন্য চূড়ান্ত হয়েছে। অপরাধ জগতের এক ডনের সুইস ব্যাংকের অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড নিয়েই ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির গল্প। ঘটনাক্রমে পাসওয়ার্ডটি হারিয়ে যায়। সেই হারিয়ে যাওয়া পাসওয়ার্ড খুঁজতে থাকেন ডন। আবদুল্লাহ জহির বাবুর চিত্রনাট্যের এ ছবিতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান, বুবলী, মিশা সওদাগর, অমিত হাসান প্রমুখ। ছবিটি প্রযোজনা করেছেন শাকিব খান ও এমডি ইকবাল। মালেক আফসারী জানান, ‘পাসওয়ার্ড’ দেশের সর্বাধিক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে।

এদিকে শাকিব খান-ববি অভিনীত ‘নোলক’ মুক্তি পাচ্ছে এবারের ঈদে। ছবির পরিচালক ও প্রযোজক সাকিব সনেট বলেন, সিনেমা হলের মালিকরা ছবিটি নিয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। একটি পারিবারিক আবেগের ছবি ‘নোলক’। আশা করি, ছবিটি দর্শকরা পছন্দ করবেন। ফেরারি ফরহাদের লেখা এ কাহিনীর ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, ওমর সানী, মৌসুমী, শহীদুল আলম সাচ্চু প্রমূখ। এদিকে রাজধানীর বলাকা সিনেওয়ার্ল্ডে ঈদে চলবে ‘আবার বসন্ত’ ছবিটি। ছবির পরিচালক অনন্য মামুন বলেন, আমার টার্গেট সিনেপ্লেক্সের দর্শক হলেও ছবির প্রিমিয়ারের পর অন্য সিনেমা হল মালিকরা ছবিটি চালানোর আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। একজন বাবার একাকিত্বের গল্প নিয়ে চলচ্চিত্র ‘আবার বসন্ত’। ছবিতে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, স্পর্শিয়া, আনন্দ খালেদ, ইমতুসহ অনেকে। এই তিন ছবির বাইরে নাসিম সাহনিকের ‘গোয়েন্দাগিরি’ ছবিটি ঈদে মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে। এই ছবির নির্মাতা জানান, এখনো কোনো হল বুকিং হয়নি। তবে চেষ্টা চলছে। আশা করি, শেষ মুহূর্তে কিছু সিনেমা হল বুকিং হবে। এ ছবিতে অভিনয় করেছেন মিম চৌধুরী, কল্যাণ কোরাইয়া, শম্পাসহ অনেকে।

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ। তিনি সৌদি আরবের রিয়াদস্থ বাদশাহ ফয়সাল স্পেশালাইজড হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিটে (বিএমটি) অ্যাসিস্ট্যান্ট কনসালট্যান্ট হিসেবে ১০ বছর কাজ করেছেন। উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপিয়ান দেশগুলোতে এসংক্রান্ত নানা সেমিনারে অংশগ্রহণের অভিজ্ঞতাও রয়েছে। চার বছর আগে এ্যাপোলো হসপিটালস ঢাকায় যোগদান করে এখানকার বিএমটি ইউনিটটিকে আইসোলেটেড হেমাটোলজি ইউনিটে রূপদান করেছেন। বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট নিয়ে কথা বলেছেন তিনি

প্রশ্ন : অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন বা বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের প্রক্রিয়া সম্পর্কে বলুন।

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট বা অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন বেশ জটিল ও ব্যয়বহুল চিকিৎসা। অস্থিমজ্জা হচ্ছে হাড়ের মধ্যে থাকা এক ধরনের নরম টিস্যু। আর স্টেমসেল হচ্ছে অস্থিমজ্জায় থাকা অপরিণত কোষ, যা শরীরে প্রয়োজনীয় রক্তকণিকা বাড়াতে কাজ করে। বেশ কিছু রক্তরোগ ও আরো কিছু অসুখে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ এই অস্থিমজ্জা এমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, যাতে জীবন রক্ষার জন্য প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন হয়ে পড়ে।

আমরা ট্রান্সপ্লান্ট প্রক্রিয়ায় রোগীর আক্রান্ত বোনম্যারো কেমোথেরাপির মাধ্যমে নষ্ট করে দাতার শরীর থেকে নেওয়া স্টেমসেল রক্তে প্রবেশের মতো করেই শরীরে প্রবেশ করিয়ে দিই। অর্থাৎ দাতা বা রোগীর দেহ থেকে বিশেষ ধরনের রক্তকোষ (স্টেমসেল) সংগ্রহ করে শরীরে প্রবেশ করানো হয়। এ ক্ষেত্রে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হয় না। দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে স্টেমসেলগুলো থেকে নতুন রক্তকণিকা তৈরি হতে শুরু করে।

প্রশ্ন : কোন ধরনের রোগীদের বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের পরামর্শ দেওয়া হয়?

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : থ্যালাসেমিয়া, অ্যাপ্লাস্টিক অ্যানিমিয়া, লিউকেমিয়ার মতো রোগে আক্রান্তদের অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন করা হয় সাধারণত অ্যালোজেনিক পদ্ধতিতে আর মায়োলোমা, লিম্ফোমার চিকিৎসা করা হয় অটোলোগাস পদ্ধতিতে।

প্রশ্ন : আপনারা কোন পদ্ধতিতে অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন করছেন? সম্ভাব্য খরচ কেমন?

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : দুটি পদ্ধতি রয়েছে, অটোলোগাস ও অ্যালোজেনিক। ‘অটোলোগাস’ পদ্ধতিতে রোগীর নিজের সুস্থ বোনম্যারো তার নিজের শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়। আর ‘অ্যালোজেনিক’ পদ্ধতিতে ভাই-বোন কিংবা দাতার কাছ থেকে নিয়ে প্রতিস্থাপন করা হয়। আমাদের সেন্টারে অটোলোগাস পদ্ধতির বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টেশন করছি। আমাদের বিশেষায়িত টিম এখন অ্যালোজেনিক পদ্ধতির বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের জন্য সম্পূর্ণরূপে প্রস্তুত। অটোলোগাস পদ্ধতিতে খরচ হয় সাত থেকে আট লাখ টাকার মতো; আর অ্যালোজেনিক পদ্ধতিতে খরচ পড়ে ১৫-২০ লাখ টাকার মতো।

প্রশ্ন : আপনাদের বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিটের বিশেষত্ব কী?

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : আমরা প্রথম বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করি ২০১৬ সালের মার্চে। একটি আদর্শ বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিট বলতে যা বোঝায় এবং এতে যা যা থাকা দরকার, তার সবই আছে আমাদের ইউনিটে। আমরা বলতে চাই, এ্যাপোলো হসপিটালস ঢাকার বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিটটি বিশ্বমানের। এখানকার চিকিৎসক, নার্স, ফার্মাসিস্টরা উচ্চতর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। বিশেষ করে ইনফেকশন ডিজিস কন্ট্রোলের বিষয়টিকে আমরা সবচেয়ে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি। কারণ বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের পর রোগীদের ইনফেকশন হয়ে অনেকের মারাত্মক পরিণতি হয় এবং তখন রোগীকে বাঁচাতে দীর্ঘদিন ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) থাকারও প্রয়োজন পড়ে, যা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। এ জন্য বিষয়টিকে আমরা বেশ গুরুত্ব দিচ্ছি।

প্রশ্ন : আপনাদের সফলতার হার কেমন?

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : আমরা এখানে মাইলোমা, লিম্ফোমা, লিউকেমিয়ার রোগীদের অটোলোগাস পদ্ধতিতে বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের চিকিৎসা দিচ্ছি। এরই মধ্যে আমাদের সাফল্যের হার শতভাগ।

প্রশ্ন : বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের জন্য রোগীরা বিদেশে যায় কেন বলে আপনি মনে করেন?

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ : কয়েক বছর আগেও বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্টের জন্য বিদেশ পাড়ি দিতে হতো বাংলাদেশি রোগীদের। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সীমিত পর্যায়ে এ চিকিৎসা চালু থাকলেও বেসরকারি কোনো হাসপাতালে এত দিন এই চিকিৎসা চালু ছিল না। বেসরকারি পর্যায়ে আমরা সর্বপ্রথম চালু করেছি। এখন সম্ভবত বাইরে যাওয়ার প্রবণতা কিছুটা হলেও কমেছে। তা ছাড়া বাংলাদেশি রোগীদের ব্ল্যাড ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় করে এখন আর দেশের বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন নেই।

ডা. আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহ

কো-অর্ডিনেটর ও কনসালট্যান্ট, হেমাটোলজি অ্যান্ড স্টেমসেল ট্রান্সপ্লান্ট বিভাগ, এ্যাপোলো হসপিটালস্, ঢাকা

৬টি পদে ১০ জনকে নিয়োগ দেওয়ার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড। আগ্রহীরা আগামী ১২ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: তথ্য মন্ত্রণালয়বোর্ডের নাম: বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড

পদের নাম: উচ্চমান সহকারী
পদসংখ্যা: ০২ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক/সমমান

বেতন: ১১,০০০-২৬,৫৯০ টাকা

পদের নাম: সাঁট লিপিকার কাম কম্পিউটার অপারেটর
পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক/সমমান

বেতন: ১১,০০০-২৬,৫৯০ টাকা

পদের নাম: সাঁট মুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: এইচএসসি/সমমান
বেতন: ১০,২০০-২৪,৬৮০ টাকা

পদের নাম: অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদসংখ্যা: ০৩ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: এইচএসসি/সমমান
বেতন: ৯,৩০০-২২,৪৯০ টাকা

পদের নাম: অফিস সহায়ক পদসংখ্যা: ০২ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: এসএসসি/সমমান
বেতন: ৮,২৫০-২০,০১০ টাকা

পদের নাম: নিরাপত্তা প্রহরী
পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: এসএসসি/সমমান
বেতন: ৮,২৫০-২০,০১০ টাকা

চাকরির ধরন: স্থায়ী
বয়স: ১২ মে ২০১৯ তারিখে ১৮-৩০ বছর। বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২ বছর

আবেদনের ঠিকানা: ভাইস চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড, রেড ক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ার, ৩৭/৩/এ ইস্কাটন গার্ডেন রোড, ঢাকা-১০০০।

আবেদনের শেষ সময়: ১২ এপ্রিল ২০১৯

ব্রিস্টলের কাউন্টি গ্রাউন্ড স্টেডিয়ামে শনিবার অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বকাপ ২০১৯’র চতুর্থ ম্যাচ। আর এই ম্যাচটিকে কম গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন না দুই দলের কেউই। বলা যায়, স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার ফিরে আসায় অস্ট্রেলিয়া এখন অনেক বেশি শক্তিশালী। তাই সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে এ বারও ফেভারিট টিম হিসেবেই ধরা হচ্ছে। পাশাপাশি আফগানিস্তানও তৈরী চমক দিতে।

আফগানিস্তানের মুহাম্মদ নবী এবং রশিদ খান তো বিশ্ব ক্রিকেটে এখন অন্যতম সেরা মুখ। বিশেষ করে রশিদ। তার স্পিন সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন বিশ্বের তাবড়-তাবড় ব্যাটসম্যানরা। অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল পর্যন্ত বলে দিয়েছেন, রশিদকে সামলানো বেশ কঠিন। অন্যদিকে ইংল্যান্ডের সাথে ওয়ার্ম আপে তাদের শেষ ম্যাচ ভালো না হলেও দুর্দান্ত আত্মবিশ্বাসী আফগানিস্তান। আর সেই জায়গাটা থেকে আফগানিস্তানকে হতাশ করাটা খুব সহজ হবে না বলেই আশা করা হচ্ছে। বিশেষ করে আইসিসির টুর্নামেন্টের উপস্থিতি, অভিজ্ঞ দল, আর মর্যাদার দাপট ধরে রাখতে মাঠে বেশ দাপুটে বেশেই দেখা যাবে আফগান সৈন্যদের।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটে গোসল করার সময় নিখোঁজ হওয়া দুই শিশুকে উদ্ধার করতে গিয়ে পদ্মায় ঝাপ দেন এক মা। শিশুদুটিকে উদ্ধার করতে পারলেও ক্লান্ত থাকায় তিনি স্রোতে ভেসে যান। এসময় তীরে দাঁড়িয়ে থাকা অপর এক মা তাকে বাঁচাতে ঝাপ দেন। এতে তিনিও ডুবে মারা যান। শুক্রবার বিকেলে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট এলাকায় এ হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন- গোয়ালন্দ উপজেলার উত্তর দৌলতদিয়া নতুন পাড়ার সুজাত শেখের স্ত্রী রেবেকা খাতুন (২২) ও চাঁদু মণ্ডলের স্ত্রী স্বপ্না বেগম (৩২)।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিকেলে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট এলাকায় স্থানীয় কয়েকজন শিশু নদীতে গোসল করার সময় হঠাৎ নীরব ও লামিয়া নিখোঁজ হয়। এ অবস্থায় শিশু নীরবের মা রেবেকা খাতুন নদীতে ঝাঁপ দিয়ে শিশু দুটিকে উদ্ধার করে স্বপ্না বেগমের কাছে দেয়। কিন্তু রেবেকা নিজে ক্লান্ত হয়ে অসুস্থ অবস্থায় নদীর স্রোতে ভেসে যায়। এ সময় রেবেকা খাতুনকে উদ্ধার করতে গিয়ে স্বপ্না বেগমও নদীতে ঝাঁপ দিলে তিনিও স্রোতে ডুবে যান। পরে স্থানীয়রা গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় স্বপ্নাকে উদ্ধার করতে পারলেও রেবেকার কোনো সন্ধান পায়নি। স্বপ্নাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে উদ্ধার হওয়া দুই শিশু সুস্থ আছে।

গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের সাব-লিডার দোলোয়ার হোসেন জানান, নিখোঁজ হওয়া রেবেকা খাতুনকে উদ্ধারের জন্য স্থানীয়দের সহযোগিতায় রাত ৮টা পর্যন্ত নদীতে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু রেবেকা খাতুনের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ফ্লাইট স্টুয়ার্ড বা কেবিন ক্রু পদে লোক নেবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করতে পারেন।

যোগ্যতা: আবেদনকারীকে এইচএসসি বা সমমান পাস হতে হবে। কোনো পরীক্ষায় তৃতীয় বিভাগ বা সমমানের ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না। ন্যূনতম জিপিএ–৩ থাকতে হবে। ও লেভেলের জন্য ৫ বিষয়ের গড় ‘ডি’ ও এ লেভেলে দুই বিষয়ের গড় ‘ডি’ থাকতে হবে। বয়স হতে হবে ১৯ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা ১৬৮ সেন্টিমিটার ও নারীদের ক্ষেত্রে ১৫৮ সেন্টিমিটার হতে হবে। নারী প্রার্থীদের অবিবাহিত হতে হবে। প্রার্থীর বয়স ১০ জুনের মধ্যে ২৫ বছর হতে হবে।

বেতন : ১৫ হাজার ৯০০-৩৮ হাজার ৪০০ টাকা

আগ্রহী প্রার্থীরা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ওয়েবসাইট www.biman-airlines.com/corporate/jobs অথবা www.bbal.teletalk.com.bd অথবা www.biman.org.bd এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ তারিখ: আবেদন শুরু হবে ২০ মে সকাল ১০টা থেকে। আবেদনের শেষ সময় আগামী ১০ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত।

যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে আগামীকাল শনিবার (১ জুন) দিবাগত রাতে সারা দেশে পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবে কদর পালিত হবে। 

এ উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আগামীকাল শনিবার বাদ জোহর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

ধর্মপ্রাণ মুসলমানের কাছে শবে কদরের রাত হাজার রাতের চেয়ে পুণ্যময়। মহান আল্লাহ ঘোষণা দিয়েছেন, ‘হাজার রাতের চেয়েও উত্তম’ পবিত্র শবে কদর সমগ্র মানবজাতির জন্য অত্যন্ত বরকতময় ও পুণ্যময় রজনী। পবিত্র শবে কদরের রাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা আল্লাহর নৈকট্য ও রহমত লাভের আশায় ইবাদত বন্দেগি করবেন। 
পবিত্র রমজান মাসে লাইলাতুল কদরে পবিত্র আল কোরআন নাজিল হয়েছিল। তাই মহান আল্লাহর প্রতি শুকরিয়া আদায়ে ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা শনিবার দিবাগত রাতে মসজিদসহ বাসা-বাড়িতে ইবাদত বন্দেগিতে মশগুল থাকবেন। এ রাতে মুসলমানেরা নফল নামাজ, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, জিকির-আসকার, দোয়া, মিলাদ ও আখেরি মোনাজাত করবেন। 
পবিত্র শবে কদর উপলক্ষে রোববার সরকারি ছুটি। 
এ উপলক্ষে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ দেশের সব মসজিদে রাতব্যাপী ওয়াজ মাহফিল, ধর্মীয় বয়ান ও আখেরি মোনাজাতের আয়োজন করা হবে। 
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন আজ শুক্রবার বাসসকে বলেন, ‘১ জুন শনিবার দিবাগত রাতে সারা দেশে পবিত্র লাইলাতুল কদর পালিত হবে।’ তিনি বলেন, এ উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আগামীকাল শনিবার বাদ জোহর (বেলা দেড়টায়) বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ‘পবিত্র লাইলাতুল কদরের গুরুত্ব ও তাৎপর্য’ শীর্ষক ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। ওয়াজ পেশ করবেন মিরপুর বায়তুল মামুর জামে মসজিদের খতিব মুফতি আবদুল মুকিত আযহারী। 
জাতীয় মসজিদসহ দেশের সব মসজিদেই তারাবিহর পর থেকে ওয়াজ মাহফিল, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাতের আয়োজন থাকবে। 
পবিত্র শবে কদর উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এবং বাংলাদেশ বেতার ও বেসরকারি রেডিও চ্যানেল বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে। এ ছাড়া সংবাদপত্রগুলোতে বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করা হবে।



»