ব্রেকিং নিউজ

‘গ্রামের নাম চট্টগ্রাম’

বৃষ্টি এবং জলাবদ্ধতায় নগরবাসী দিনভর নরকযন্ত্রণা ভোগ করেছে। রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সকালে স্ব স্ব কাজকর্মে যেতেও ভোগান্তি পোহাতে হয়। বাসাবাড়ি, দোকানপাট এমনকি হাসপাতালও জলাবদ্ধতা থেকে বাদ যায়নি। 

ভোগান্তিতে অতিষ্ঠ মানুষের শেষ আশ্রয় যেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। সেখানে জলাবদ্ধতা নিয়ে কষ্টের কাহিনি যেমন লিখেছে তেমনি বিদ্রূপ করেছেন স্ট্যাটাস কিংবা মন্তব্য লিখে। ‘প্রাকৃতিক সুইমিং পুল, সমুদ্রসৈকত ইত্যাদি বিশেষণে নগরকে বিশেষায়িত করেছেন ফেসবুকে। 

জাদুশিল্পী রাজীব বসাক ওয়াসার একটি সতর্কীকরণ বোর্ডের ছবিসহ পোস্ট দিয়ে লিখেছেন, ‘উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে চট্টগ্রাম। (বি.দ্র. সাঁতার না জানলে চট্টগ্রাম ভ্রমণ নিরাপদ নয়। সৌজন্যে: চট্টগ্রাম ওয়াসা।)’

মো. আবদুল মোমিন নামে এক ব্যাংকার লিখেছেন, ‘এত উন্নয়ন রাখব কোথায়? শুনেছি চট্টগ্রামের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকার মেগা প্রকল্পের কথা। দায়িত্ব সব বীর সম্প্রদায়ের ওপর ন্যস্ত ছিল। বীরদের এ সমস্ত কর্ম চোখে দেখা যায় না। শুধু বৃষ্টি হলে, জোয়ার আসলে ভেসে থাকা যায়। বীর ধর্ম, বীর কর্ম বলে কথা! প্রকল্পের টাকা কোন ব্যাংকে তা জেনেও লাভ নাই! শুধু জানি নগরী পানির নিচে তলিয়ে আছে। আমরা লখিন্দরেরা ভাসছি।’

ঢেউ তুলে চলছে িবআরটিসির দোতলা বাস। গতকাল দুপুর ১২টায়।  প্রথম আলো

ঢেউ তুলে চলছে িবআরটিসির দোতলা বাস। গতকাল দুপুর ১২টায়। প্রথম আলোবৃষ্টিতে নগরের পানি ওঠেনি এমন এলাকা খুঁজে পাওয়া ছিল দুষ্কর। সব জায়গায় ছিল পানি আর পানি। রফিকুল ইসলাম নামে এক সাংবাদিক দুপুরে লিখেছেন, স্টিলমিল থেকে সিমেন্ট ক্রসিং সড়কে কোমরসমান পানি, সিমেন্ট ক্রসিং থেকে রুবি সিমেন্ট গেট এলাকায় গলাসমান পানি।

নোমান খালেদ চৌধুরী নামে একজন চিকিৎসক কোমরসমান পানিতে নারী-পুরুষের দুর্ভোগের ছবি দিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে লিখেছেন, ‘চট্টগ্রামবাসীর সৌভাগ্য দেখে ঈর্ষান্বিত হতেও পারেন। বর্ষাকালের আগমনী গানের আনন্দ ভেলা।’

সাংবাদিক সুমন গোস্বামী স্ট্যাটাস দিয়েছেন এভাবে ‘গ্রামের নাম বন্দর নগরী চট্টগ্রাম।’

ভ্যানে চড়ে স্কুলে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুর ১২টায়।  প্রথম আলো

ভ্যানে চড়ে স্কুলে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুর ১২টায়। প্রথম আলোজাহিদ হোসেন নামে এক উন্নয়নকর্মী ফেসবুকে লিখেছেন, বর্ষা আসলেই প্রিয় চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিয়ে এত ট্রল হয়, তারপরও মেয়র কিংবা সিডিএ চেয়ারম্যানসহ প্রশাসন এত নির্লিপ্ত থাকে কীভাবে? আবৃত্তিকার মিলি চৌধুরী পানিতে ডুবে যাওয়া জামাল খান বাই লেনের অনেকগুলো ছবি পোস্ট করেছেন। ওপরে লিখে দিয়েছেন বন্যায় ডুবে যাচ্ছে জামাল খান বাই লেন, আর কত দিন। 

কবি ফারহানা আনন্দময়ী লিখেছেন, ‘আমি যে এলাকায় আছি, চট্টগ্রামের ভাষায় একে বলে “বাউন্তি”। জল জমার সুযোগ নেই, গড়িয়ে নিচে যায়। জল জমে থাকা এলাকার বাসিন্দাদের কথা ভেবে শঙ্কিত হচ্ছি। চলাচলকারীদেরও দুরবস্থা। সবকিছু স্থবির। এভাবেই আরও দু–তিন দিন একটানা ঝরবে। এর নাম “পচা বৃষ্টি”।’

পানির মধ্যেই চলছে গাড়ি। বেলা ১১টায়।  জুয়েল শীল

পানির মধ্যেই চলছে গাড়ি। বেলা ১১টায়। জুয়েল শীলসীমা কুণ্ডু নামে একজন লিখেছেন, ‘চারদিক থই থই! আমি নীরব! শব্দ করলেই তো বলবেন আমিই জলের জন্য হেদিয়ে মরেছি! ঠিক আছে, কিন্তু জলাবদ্ধতার জন্য তো মরিনি।’

পতেঙ্গা আবহাওয়া দপ্তরের কর্তব্যরত আবহাওয়াবিদ উজ্জ্বল পাল জানান, গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় আমবাগান কেন্দ্রে ২৫৯ দশমিক ৯ মিলিমিটার এবং পতেঙ্গা কেন্দ্রে ১৮৮ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি (বিডিইউ) বিভিন্ন পদে কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের জন্য বাংলাদেশি নাগরিকদের থেকে দরখাস্ত আহ্বান করেছে। আগ্রহী প্রার্থীদের অনলাইনের (www.bdu.ac.bd) মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়টি গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক সংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত।


১) পদের নাম: রেজিস্ট্রার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৫৬,৫০০/-৭৪,৪০০/–

২) পদের নাম: পরিচালক (অর্থ ও হিসাব)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৫৬,৫০০/-৭৪,৪০০/–

৩) পদের নাম: পরিচালক (ইনস্টিটিউট ফর অনলাইন অ্যান্ড ডিসট্যান্ট লার্নিং)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৫৬,৫০০/-৭৪,৪০০/–

৪) পদের নাম: সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৫০,০০০/-৭১,২০০/–

৫) পদের নাম: উপপরিচালক (অর্থ ও হিসাব)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৪৩,০০০/-৬৯,৮৫০/–

৬) পদের নাম: উপপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৪৩,০০০/-৬৯,৮৫০/–

৭) পদের নাম: ডেটাবেইস অ্যাডমিনিস্ট্রেটর
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৪৩,০০০/-৬৯,৮৫০/–

৮) পদের নাম: নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৩৫,৫০০/-৬৭,০১০/–

৯) পদের নাম: প্রোগ্রামার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৩৫,৫০০/-৬৭,০১০/–

১০) পদের নাম: ওয়েব মাস্টার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৩৫,৫০০/-৬৭,০১০/–

১১) পদের নাম: সহকারী রেজিস্ট্রার
পদসংখ্যা: ৩টি
বেতন স্কেল: ২৯,০০০/-৬৩,৪১০/–

১২) পদের নাম: সহকারী কম্পিউটার প্রোগ্রামার
পদসংখ্যা: ২টি
বেতন স্কেল: ২২,০০০/-৫৩,০৬০/–

১৩) পদের নাম: সেকশন অফিসার
পদসংখ্যা: ৬টি
বেতন স্কেল: ২২,০০০/-৫৩,০৬০/–

১৪) পদের নাম: পাবলিক রিলেশন অফিসার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ২২,০০০/-৫৩,০৬০/–

১৫) পদের নাম: হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ২২,০০০/-৫৩,০৬০/–

১৬) পদের নাম: লার্নিং ডিজাইনার (গ্রাফিকস অ্যানিমেশন)/ (অডিও ভিডিও এডিটিং)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

১৭) পদের নাম: লার্নিং ডিজাইনার (অডিও)
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

১৮) পদের নাম: লার্নিং টেকনোলজিস্ট
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

১৯) পদের নাম: অনলাইন লার্নিং ম্যানেজার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

২০) পদের নাম: লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ডিজাইনার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

২১) পদের নাম: সাব-টেকনিক্যাল অফিসার
পদসংখ্যা: ২টি
বেতন স্কেল: ১৬,০০০/-৩৮,৬৪০/–

২২) পদের নাম: হিসাবরক্ষক
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ১২,৫০০/-৩০,২৩০/–

২৩) পদের নাম: ক্যাশিয়ার
পদসংখ্যা: ২টি
বেতন স্কেল: ১২,৫০০/-৩০,২৩০/–

২৪) পদের নাম: ডেটা এন্ট্রি অপারেটর
পদসংখ্যা: ২টি
বেতন স্কেল: ৯,৩০০/-২২,৪৯০/–

২৫) পদের নাম: সহকারী স্টোরকিপার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৯,৩০০/-২২,৪৯০/–

২৬) পদের নাম: অফিস সহকারী-কাম কম্পিউটার টাইপিস্ট
পদসংখ্যা: ৩টি
বেতন স্কেল: ৯,৩০০/-২২,৪৯০/–

২৭) পদের নাম: ফটোগ্রাফার
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৯,৩০০/-২২,৪৯০/–

২৮) পদের নাম: ড্রাইভার
পদসংখ্যা: ৪টি
বেতন স্কেল: ৯,৩০০/-২২,৪৯০/–

২৯) পদের নাম: ইলেকট্রিশিয়ান
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৯,০০০/-২১,৮০০/–

৩০) পদের নাম: মেশিন অপারেটর
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৮,৮০০/-২১,৩১০/–

৩১) পদের নাম: নিরাপত্তাপ্রহরী
পদসংখ্যা: ৫টি
বেতন স্কেল: ৮,২৫০/-২০,০১০/–

৩২) পদের নাম: ডেসপাসম্যান
পদসংখ্যা: ১টি
বেতন স্কেল: ৮,২৫০/-২০,০১০/–

৩৩) পদের নাম: অফিস সহায়ক
পদসংখ্যা: ৪টি
বেতন স্কেল: ৮,২৫০/-২০,০১০/–

৩৪) পদের নাম: ক্লিনার
পদসংখ্যা: ৩টি
বেতন স্কেল: ৮,২৫০/-২০,০১০/–

আবেদনের শেষ তারিখ: ১৭ জুলাই, ২০১৯ তারিখ বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

বিস্তারিত: https://bdu.ac.bd/notice



»